চোরেরা কত কৌশলই না জানে, চুরি করতে ১০ কেজি ওজন কমিয়েছে

চুরি করতে চোরেরা কত শত কৌশলই না নেয়। সব কিছু দেখেশুনে দীর্ঘদিন ধরে চলে পরিকল্পনা, এরপর কাজে নেমে পড়া। কিন্তু কাজ শেষ করতে চোরদের অবশ্যই সুস্থ-সবল হওয়া দরকার। বেশি দুর্বল অথবা মোটাতাজা শরীর নিয়ে তো আর সিঁদ কেটে ঘরে ঢোকা যায় না! সেই কথায় মাথায় রেখেই সম্ভবত ভারতের এক চোর চুরির আগে ১০ কেজি ওজন কমিয়েছেন। আর তা নিয়ে হইচই পড়ে গেছে স্থানীয় মিডিয়ায়।

জানা যায়, আহমেদাবাদের উদয়পুরের বাসিন্দা মতি সিং চৌহান প্রায় দুই বছর কাজ করেছেন বোপালের বসন্ত বাহার সোসাইটির মোহিত মারাদিয়ার বাড়িতে। ঘরের বিভিন্ন কাজে সাহায্য করতেন তিনি। ফলে আনাচকানাচে কোথায় কী রয়েছে, ঘরের কোথায় মূল্যবান জিনিস রাখা হয় তা খুব ভালোভাবেই জেনে যান মতি সিং। আর তারপরই ওই বাড়িতে চুরির পরিকল্পনা করেন তিনি।

মতি সিং জানতেন বাড়ির দরজা ডিজিটাল, যা ভাঙা যাবে না এবং বাড়ির সামনে-পেছনে সিসি ক্যামেরা লাগানো। তাই সেগুলোর নজর এড়িয়ে রান্নাঘরের ভেন্টিলেশন জানালা দিয়ে ঘরে ঢোকার পরিকল্পনা করেন তিনি।

যেমন ভাবা তেমন কাজ, ৩৪ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি সাবেক মনিবের বাড়িতে চুরি করতে যান। সঙ্গে নেন একটি তোয়ালে ও করাত। সেগুলো দিয়ে রান্নাঘরের জানালা ভেঙে ঢুকে প্রায় ৩৭ লাখ রুপির জিনিসপত্র নিয়ে বেরিয়ে যান।

আর এই কাজটি করতে পাক্কা ১০ কেজি ওজন কমিয়েছিলেন অভিযুক্ত ব্যক্তি। পুলিশের কাছে ধরা পড়ার পর তিনি জানান, যেহেতু দরজা ভাঙা সম্ভব ছিল না এবং রান্নাঘরের ছোট জানালা দিয়ে ঢুকতে হতো, তাই তাকে রোগা হতেই হতো। এ জন্য দিনের পর দিন মাত্র এক বেলা খেয়ে নিজের ওজন ৭৫ থেকে ৬৫ কেজিতে নামিয়ে আনেন মতি সিং। তারপর যান চুরি করতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *